বৃহস্পতিবার , ডিসেম্বর ১৪ ২০১৭ | ৩০শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
Breaking News
Home / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / দক্ষিণ এশিয়া স্যাটেলাইট- “জিএসএটি-৯” এর গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

দক্ষিণ এশিয়া স্যাটেলাইট- “জিএসএটি-৯” এর গুরুত্বপূর্ণ কিছু তথ্য

১. এই যোগাযোগ স্যাটেলাইটের ওজন ২,২৩০ কেজি যা চারটি বড়সড় হাতির চেয়েও বেশি ভারী। এর নির্মাণ খরচ পড়েছে ৪৫০ কোটি রুপি। এটি দক্ষিণ এশিয়ার ৭ প্রতিবেশী দেশ ভারত, নেপাল, ভুটান, বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, শ্রীলংকা এবং আফগানিস্তানের মধ্যে টেলিযোগাযোগ সংযোগ ঘটাবে। পাকিস্তান এই প্রকল্প থেকে সরে গেছে।
২. এ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ চীনের মহাকাশ কূটনীতি মোকাবিলার পাল্টা পদক্ষেপ মনে করা হচ্ছে। কারণ পাকিস্তান ও শ্রীলংকাকে যোগাযোগ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণে চীন সহযোগিতা করেছে।
৩. ‘দক্ষিণ এশিয়া স্যাটেলাইটের’ নতুন প্রোপালসন (নিক্ষেপক) তিন বছর ধরে নির্মিত হয়েছিল। এর জীবনকাল ১২ বছর। যেই জিএসএলভি রকেটের মাধ্যমে স্যাটেলাইটটি উৎক্ষেপিত হয়েছে তার ওজন ৪১৪ কেজি এবং এটি ৫০ মিটার লম্বা। এটি জিএসএলভির একাদশতম ফ্লাইট যাকে বিজ্ঞানীরা ‘দুষ্টু ছেলে’ আখ্যা দেন।
৪. পাকিস্তান একমাত্র সার্ক সদস্য দেশ যারা নিজস্ব মহাকাশ কর্মসূচির কথা বলে এ প্রকল্প থেকে বেরিয়ে যায়। পাকিস্তানের পাঁচটি স্যাটেলাইট আছে। কিন্তু দেশটির ভারী উৎক্ষেপক এবং স্যাটেলাইট আবিষ্কার সুবিধার অভাব রয়েছে।
৫. এ স্যাটেলাইট অংশীদার দেশগুলোকে দুর্যোগের সময় উন্নত যোগাযোগ গড়ে তুলতে এবং দেশগুলোর মধ্যে হটলাইন (সরাসরি সংযোগ) চালু করতে সহযোগিতা করবে। এটি টেলিমেডিসিন এবং শিক্ষা কার্যক্রমের ক্ষেত্রেও সাহায্য করবে।

About Shishir

A positive person can be change the society.

Check Also

এমপিদের প্রভাব ও টাকা নিয়েই উদ্বেগ

দেশের ৫৯ জেলায় আজ বুধবার হতে যাচ্ছে দেশের প্রথম জেলা পরিষদ নির্বাচন। চেয়ারম্যান ও সদস্যপদে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *